বইঃ মৃত্যুর পরে অনন্ত জীবন

2
3288

mrittur

সংক্ষিপ্ত বর্ণনাঃ বর্তমান সময়ে যুগের উন্নতি ও অগ্রগতির ে চরম মুহূর্তে মানুষ সর্বস্রষ্টা আল্লাহ্‌ ও তাঁর অসীম ক্ষমতার কথা ভুলতে বসেছে প্রায়। মূলত যা কিছু হয়েছে তা কোনো আবিষ্কারকের ব্যক্তিগত কৃতিত্ব নয়, বরং তা হলো তাদেরই মহান স্রষ্টার কিঞ্চিত অনুদান মাত্র। মহান স্রষ্টার কিছু কিছু সৃষ্টি আমাদের দৃষ্টিগোচর হয় কিন্তু মানব দৃষ্টির বাইরে আরো অগণিত সৃষ্টি রয়েছে। ঐ সমস্ত সৃষ্টির প্রতিও মুমিনদের ঈমান রাখতে হবে। আর বর্তমানে অদৃশ্য সৃষ্টির অন্যতম একটি সৃষ্টি হল জান্নাত, যা পরকালে মহান আল্লাহ্‌ তাঁর দয়ায় মুমিন বান্দাদের প্রতিদান করবেন।  তদুপরি কুরআন ও হাদীসের ে কল্পনাতীত সৃষ্টি সম্পর্কে যা কিছু বর্ণিত হয়েছে, তাঁর কিছু সারমর্ম উর্দূভাষী সুলেখক জনাব ইকবাল কিলানী সাহেব লিখিত “জান্নাত কা বায়ান” ও “জাহান্নাম কা বায়ান” নামক গ্রন্থ দু’টি তে সু বিন্যস্ত করেছেন। বর্ণনাতীত শান্তি ও কল্পনাতীত আরামের আবাসালয় জান্নাত সম্পর্কে ঈমান আনার সাথে সাথে কুরআন ও হাদীসে ে ব্যাপারে যা কিছু বর্ণিত হয়েছে, তা জেনে তা লাভের জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করাও এবং জাহান্নামের শাস্তি সম্পর্কে জেনে তা থেকে বেছে থাকার প্রত্যয়ে দ্বীন-ইসলামের সঠিক পথে চলা প্রয়োজন। ‘জান্নাত কা বায়ান’ ও ‘জাহান্নাম কা বায়ান’ এই দুটি গ্রন্থ এক খন্ডে প্রকাশ করেছে মৃত্যুর পরের অনন্ত জীবন-জান্নাতের নেয়ামত ও জাহান্নামের আযাব’ নামে মানুষের মৃত্যুর পরের জীবন, কবর,হাশর,মিযান,পুলসিরাত ইত্যাদিসহ জান্নাতের অফুরন্ত নেয়ামত ও জাহান্নামের ভয়াল শাস্তির বর্ণনাসহ একটি পূর্নাঙ্গ বই প্রকাশ করেছে।

মৃত্যুর পরে অনন্ত জীবন – QA Server
মৃত্যুর পরে অনন্ত জীবন – QA Server

মৃত্যুর পরে অনন্ত জীবন – Mediafire
মৃত্যুর পরে অনন্ত জীবন – Mediafire

Print Friendly, PDF & Email


'আপনিও হোন ইসলামের প্রচারক'
প্রবন্ধের লেখা অপরিবর্তন রেখে এবং উৎস উল্লেখ্য করে
আপনি Facebook, Whatsapp, Telegram, ব্লগ, আপনার বন্ধুদের Email Address সহ অন্য Social Networking ওয়েবসাইটে শেয়ার করতে পারেন, মানবতার মুক্তির লক্ষ্যে ইসলামের আলো ছড়িয়ে দিন। ইসলামি দা’ওয়াহ্‌র ৮০ টিরও বেশী উপায়! বিস্তারিত জানতে এইখানে ক্লিক করুন "কেউ হেদায়েতের দিকে আহবান করলে যতজন তার অনুসরণ করবে প্রত্যেকের সমান সওয়াবের অধিকারী সে হবে, তবে যারা অনুসরণ করেছে তাদের সওয়াবে কোন কমতি হবেনা" [সহীহ্ মুসলিম: ২৬৭৪]

দ্বীনী খিদমায় অংশ নিন

2 COMMENTS

আপনার মন্তব্য লিখুন