কার মুখ দেখে যে বের হয়েছিলাম?

0
204

লেখক: ওয়ায়ত জান্নাহ

কোনো কোনো মানুষ বিপদে পড়লে বা গুরুত্বপূর্ণ কাজ ভালোভাবে সম্পাদন করতে না পারলে তাদেরকে বলতে শোনা যায়, ‘কার মুখ দেখে যে বের হয়েছিলাম!

এটি একটি ভিত্তিহীন চিন্তাভাবনা ও ইসলামী আকীদাহ পরিপন্থি বিশ্বাস। ইসলাম কুলক্ষণ-এ বিশ্বাস করে না। কারো দর্শন কল্যাণ বা অকল্যাণ বয়ে আনে। ইসলাম এমন বিশ্বাসের কথা বলে না; বরং এ থেকে নিষেধ করে। হাদীসে এসেছে, ‘সংক্রামক রোগ, কুলক্ষণ, পেঁচা ও সফার-এর কোনো বাস্তবতা নেই।[১]

এমনটা ফেরাউনের বিশ্বাস ছিল। যখন তার দলবল কোনো বিপদআপদের সম্মখীন হত, দোষ চাপাত মূসা আ. এর কাঁধে। বলত, এসব বিপদআপদ মূসার কারণে। আল্লাহ তাআলা এ সম্পর্কে বলেন: “যখন তাদের কাছে কল্যাণ আসত, বলত, এটা আমাদের অর্জন। আর যখন তাদের কাছে অকল্যাণ আসত, তারা এটাকে মূসা ও তার সঙ্গীদের কুলক্ষণ বলে গণ্য করত।[২]

এ ধরনের বিশ্বাস রাখা শিরক। রাসূলুল্লাহ (সা:) বলেছেন, ‘কুলক্ষণ গ্রহণ করা শিরক, কুলক্ষণ গ্রহণ করা শিরক—এভাবে তিনি তিনবার বলেন।[৩] তিনি আরও বলেন, ‘যে-ব্যক্তি কুলক্ষণ গ্রহণ করে কোনো প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত বাতিল করল, সে শিরক করল।[৪]

এমনকি কেউ যদি এরূপ কথা বলে, সে উম্মাতে মুহাম্মাদীর অন্তর্ভূক্ত নয়। রাসূলুল্লাহ (সা:) বলেছেন, ‘যে-ব্যক্তি কুলক্ষণ গ্রহণ করে বা যার জন্য কুলক্ষণ গ্রহণ করা হয়, সে আমাদের দলভূক্ত নয়।[৫]

তাছাড়া এমন বিশ্বাসের মাধ্যমে সে-ব্যক্তির ব্যাপারে কু-ধারনা পোষণ করা হয়; যা ইসলামে নিষিদ্ধ। আল্লাহ তাআলা এ ব্যাপারে বলেন: “হে ঈমানদাগণ, তোমরা অনেক ধারনা থেকে বেঁচে থাকো। কেননা কিছু ধারনা গুনাহ।[৬]

তথ্যসূত্র:

[১] সহীহুল বুখারী, ৫৭০৭
[২] সূরা আরাফ, আয়াত : ১৩১
[৩] সুনানু আবী দাউদ, ৩৯১২, হাদীসটি সহীহ
[৪] মুসনাদ আহমাদ, ৭০৪৫, হাদীসটি হাসান বা গ্রহণযোগ্য
[৫] মুসনাদ বাযযার, ৩৫৭৮; তাবারানী, ৩৫৫, হাদীসটি সহীহ
[৬] সূরা হুজুরাত, আয়াত : ১২

Print Friendly, PDF & Email


'আপনিও হোন ইসলামের প্রচারক'
প্রবন্ধের লেখা অপরিবর্তন রেখে এবং উৎস উল্লেখ্য করে
আপনি Facebook, Twitter, ব্লগ, আপনার বন্ধুদের Email Address সহ অন্য Social Networking ওয়েবসাইটে শেয়ার করতে পারেন, মানবতার মুক্তির লক্ষ্যে ইসলামের আলো ছড়িয়ে দিন। "কেউ হেদায়েতের দিকে আহবান করলে যতজন তার অনুসরণ করবে প্রত্যেকের সমান সওয়াবের অধিকারী সে হবে, তবে যারা অনুসরণ করেছে তাদের সওয়াবে কোন কমতি হবেনা" [সহীহ্ মুসলিম: ২৬৭৪]

আপনার মন্তব্য লিখুন