পর্নের ব্রেইন ইফেক্ট পর্ব-২

0
260

লেখক: মিনহায মোহাম্মাদ

পর্ব-১ | পর্ব-২ | পর্ব-৫

পর্ন কীভাবে ব্রেইনের গঠন পরিবর্তন করে?

ব্রেইনের নিউরনগুলো একে অপরের সাথে মিলে বন্ধন তৈরি করে। ঠিক অন্যান্য আসক্তি-সৃষ্টকারী ড্রাগের মতো পর্ন আমাদের ব্রেইনে ডোপামিনের বন্যা বয়িয়ে দেয়। যতবার পর্ন দেখা হয় ততবার ব্রেইনে কেমিক্যালগুলো বয়ে যেতে থাকে। তৈরি হয় নতুন নতুন রিওয়ার্ড প্যাথওয়ে (reward pathway) যা দিন শেষে একজন পর্ন ব্যবহারকারীর ব্রেইনের গঠন পরিবর্তন করে ফেলে। যার ফলে পর্নের প্রতি মারাত্মক রকমের আসক্তি সৃষ্টি হয়।

কি? খুব অবাক হচ্ছেন? এটাই অসুন্দর সত্য। পর্ন আসলেই ব্রেইনের গঠন পরিবর্তন করে ফেলে। ব্রেইনের কাজ বোঝার ক্ষেত্রে গত দুই দশক ধরে যে আবিষ্কারটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে তা হচ্ছে নিউরোপ্লাস্টিসিটি (neuroplasticity), “নিউরো” মানে হলো স্নায়ু আর “প্লাস্টিসিটি” মানে হলো পরিবর্তিত হওয়া। স্নায়ুবিজ্ঞানীদের মতে, আমাদের ব্রেইন হচ্ছে “Tetris” নামক একটি পাজেল ম্যাচিং গেইমের মতো, জীবনের অভিজ্ঞতা অনুযায়ী ব্রেইনে প্রতিনিয়ত নতুন প্যাথওয়ে সৃষ্টি হতে থাকে। [১]

স্নায়ুবিজ্ঞানীদের মুখে একটা কথা প্রায়ই শোনা যায়: “Neurons that fire together, wire together।” [২] আপনি হয়তো চিন্তা করছেন, নিউরন কী? এতে আবার আগুন ধরে কীভাবে? নিউরন হলো ব্রেইনের একটি কোষ বা সেল (cell), আপনি যখন কিছু দেখেন, শোনেন বা কোনো ধরনের ঘ্রাণ পান তখনি ব্রেইনের এই কোষগুলো সক্রিয় হয়, কিছু কেমিক্যাল নির্গত করে। এ কেমিক্যালগুলো অন্য নিউরনের সাথে বন্ধন তৈরিতে সহায়তা করে। [৩] যেমন: মজার কোনো খাবার খাওয়ার সময় ব্রেইন ডোপামিন নিঃসৃত করে, এই কেমিক্যালটির কারণেই আপনি খাবারটা খাওয়ার সময় মজার অনুভূতি পান; [৪] আর যখন আপনার স্ত্রীর হাত ধরেন তখন আপনার ব্রেইন যে কেমিক্যালটি নির্গত করে তার নাম হচ্ছে অক্সিটোসিন।

এটি মানুষের সাথে সামাজিক সম্পর্ক তৈরিতে সহায়তা করে। [৫] ধরুন, আপনার মামা আপনাকে খুব আদর করে। যখনি আপনি তার সাথে দেখা করতে যান সে খুব খুশি হয়ে আপনাকে জড়িয়ে ধরে, আপনাকে আইসক্রিম খাওয়ায়। আপনার প্রতি তার ভালোবাসা দেখে আপনি মনে মনে অবশ্যই ভালো অনুভূতি পাবেন। কেননা, আপনার ব্রেইন এ ক্ষেত্রে যে প্যাথওয়ে তৈরি করবে তা আপনার মামার প্রতি ভালোবাসার অনুভূতি সৃষ্টিতে ভূমিকা রাখবে। এভাবে আপনার ব্রেইনে সবকিছুর জন্য প্যাথওয়ে আছে: সাইকেল চালানো, বারগার খাওয়া, বাচ্চাদের সাথে সময় কাটানো…সবক্ষেত্রেই। ঠিক এভাবেই পর্ন দেখার সময়ও ব্রেইনে পর্নের জন্য নতুন প্যাথওয়ে সৃষ্টি হয়। [৬]

অন্যান্য আসক্তিকর ড্রাগের মতো পর্ন আমাদের ব্রেইনকে ডোপামিনে ডুবিয়ে দেয়। [৭] বারবার পর্ন দেখার ফলে ব্রেইনে অতিরিক্ত পরিমাণে ডোপামিন উৎপন্ন হয়। ডোপামিনের এই বোঝা থেকে পরিত্রাণ পাবার জন্য ব্রেইন কিছু ডোপামিন রিসেপ্টর কমিয়ে ফেলে। [৮] এক্ষেত্রে ব্রেইন নিউরনের শেষ প্রান্তে অবস্থিত ছোট কানের মতো অংশকে ব্যবহার করে। এটি ডোপামিনের পরিমাণ নির্ণয় করতে পারে।

পর্নের ব্রেইন ইফেক্ট ০১ থেকে আপনারা ইতিমধ্যে জেনেছেন যে, যখন ব্রেইনে কম রিসেপ্টর থাকে, তখন পর্ন দেখার ফলে ডোপামিন উৎপন্ন হতে থাকলেও, এর প্রভাব তেমন একটা বোঝা যায় না। [৯] তাই একই মাত্রার পর্ন আর আগের মতো উত্তেজনা সৃষ্টি না। এমন অবস্থায় বেশির ভাগ পর্ন ব্যবহারকারীরা আগের চেয়েও বেশি পর্ন খুঁজতে থাকে, চায় আরো উত্তেজনাদায়ক কিছু দেখতে- যাতে তারা চূড়ান্ত মুহূর্তে পৌঁছে যেতে পারে। [১০] এই প্রবণতা তাদেরকে আসক্তির আরো এক স্তর উপরে নিয়ে যায়। তাদের অস্বাভাবিক মাত্রায় ডোপামিনে ডুবে থাকা ব্রেইনের সাথে অভ্যস্ত হতে থাকে। ফলে দৈনন্দিন যে কাজগুলো স্বাভাবিকভাবে ডোপামিন নিঃসৃত করে সেগুলো আর আগের মতো আনন্দ দেয় না। তাই অন্যান্য কাজের চেয়ে পর্ন দেখাকেই তারা বেশি গুরুত্ব দেয়। পর্ন ছাড়া টিকে থাকাটা তাদের জন্য বেশ কঠিন হয়ে যায়। [১১] এজন্যই পর্ন এতটা আসক্তিকর। [১২]

আসক্ত হওয়ার সাথে সাথে, একজন পর্ন ব্যবহারকারীর জীবনে নতুন নতুন সমস্যা দেখা দেয়, কারণ, পর্ন আসক্তি ব্রেইনের ভালো সিদ্ধান্ত নেবার অংশকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। [১৩]

প্রায় ১০ বছরেরও বেশি সময় ধরে করা কিছু গবেষণায় দেখা যায়, ড্রাগ আসক্তি ব্রেইনের ফ্রন্টাল লোবকে ছোট করে ফেলে। [১৪] ফ্রন্টাল লোব ব্রেইনের খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটা অংশ। এটি বিভিন্ন সমস্যা সমাধান ও সিদ্ধান্ত নেবার ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। [১৫] তবে সাম্প্রতিক গবেষণায় জান যায়, শুধুমাত্র ড্রাগ আসক্তিই ব্রেইনের এই অংশকে ক্ষতিগ্রস্ত করে না- অন্যান্য আসক্তি থেকেও এমনটা হয়, যেমন: অতিরিক্ত খাওয়া, ইন্টারনেট আসক্তি, ধর্ষণ। [১৬] সবচেয়ে ভয়ংকর ব্যাপার হচ্ছে- একজন মানুষ যত বেশি পর্ন দেখে, তাদের ব্রেইনের ক্ষতিও তত মারাত্মক হয়, এ অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসাও কঠিন থেকে কঠিনতর হতে থাকে। [১৭] তবে ভালো খবর হচ্ছে- নিউরোপ্লাস্টিসিটি উভয় ভাবেই কাজ করে। অর্থাৎ এই অভ্যাস পরিত্যাগের মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্ত ব্রেইনকে সুস্থ অবস্থায় ফিরিয়ে আনা যায়। তাই প্রাথমিক পর্যায়ে থাকতে থাকতেই এই আসক্তি থেকে বেরিয়ে আসাতে হবে। তা না হলে এই জাল থেকে মুক্তি পাওয়া অসম্ভব হয়ে দাঁড়াবে।

পর্ব-১ | পর্ব-২ | পর্ব-৩ | পর্ব-৪ | পর্ব-৫


রেফারেন্সঃ

[1] Doidge, N. (2007). The Brain That Changes Itself. New York: Penguin Books, preface.

[2] Doidge, N. (2007). The Brain That Changes Itself. New York: Penguin Books, 63.

[3] Bostwick, J. M. and Bucci, J. E. (2008). Internet Sex Addiction Treated with Naltrexone. Mayo Clinic Proceedings 83, 2: 226–230; Doidge, N. (2007). The Brain That Changes Itself. New York: Penguin Books, 63.

[4] Hilton, D. L., and Watts, C. (2011). Pornography Addiction: A Neuroscience Perspective. Surgical Neurology International, 2: 19; (http://www.ncbi.nlm.nih.gov/pmc/articles/PMC3050060/) Doidge, N. (2007). The Brain That Changes Itself. New York: Penguin Books, 107; Paul, P. (2007). Pornified: How Pornography Is Transforming Our Lives, Our Relationships, and Our Families. New York: Henry Hold and Co., 75; Nestler, E. J. (2005). Is There a Common Molecular Pathway for Addiction? Nature Neuroscience 9, 11: 1445–1449.

[5] Schneiderman, I., Zagoory-Sharon, O., Leckman, J., and Feldman, R. (2012). Oxytocin During the Initial Stages of Romantic Attachment: Relations to Couples’ Interactive Reciprocity. Psychoneuroendocrinology 37:1277-1285.

[6] Hilton, D. L. (2013). Pornography Addiction—A Supranormal Stimulus Considered in the Context of Neuroplasticity. Socioaffective Neuroscience & Psychology 3:20767; Angres, D. H. and Bettinardi-Angres, K. (2008). The Disease of Addiction: Origins, Treatment, and Recovery. Disease-a-Month 54: 696–721. Doidge, N. (2007). The Brain That Changes Itself. New York: Penguin Books, 108.

[7] Hilton, D. L. (2013). Pornography Addiction—A Supranormal Stimulus Considered in the Context of Neuroplasticity. Socioaffective Neuroscience & Psychology 3:20767; Georgiadis, J. R. (2006). Regional Cerebral Blood Flow Changes Associated with Clitorally Induced Orgasm in Healthy Women. European Journal of Neuroscience 24, 11: 3305–3316.

[8] Hilton, D. L., and Watts, C. (2011). Pornography Addiction: A Neuroscience Perspective. Surgical Neurology International, 2: 19; (http://www.ncbi.nlm.nih.gov/pmc/articles/PMC3050060/) Angres, D. H. and Bettinardi-Angres, K. (2008). The Disease of Addiction: Origins, Treatment, and Recovery. Disease-a-Month 54: 696–721; Mick, T. M. and Hollander, E. (2006). Impulsive-Compulsive Sexual Behavior. CNS Spectrums, 11(12):944-955; Nestler, E. J. (2005). Is There a Common Molecular Pathway for Addiction? Nature Neuroscience 9, 11: 1445–1449.

[9] Hilton, D. L., and Watts, C. (2011). Pornography Addiction: A Neuroscience Perspective. Surgical Neurology International, 2: 19; (http://www.ncbi.nlm.nih.gov/pmc/articles/PMC3050060/) Angres, D. H. and Bettinardi-Angres, K. (2008). The Disease of Addiction: Origins, Treatment, and Recovery. Disease-a-Month 54: 696–721; Mick, T. M. and Hollander, E. (2006). Impulsive-Compulsive Sexual Behavior. CNS Spectrums, 11(12):944-955.

[10] Angres, D. H. and Bettinardi-Angres, K. (2008). The Disease of Addiction: Origins, Treatment, and Recovery. Disease-a-Month 54: 696–721; Zillmann, D. (2000). Influence of Unrestrained Access to Erotica on Adolescents’ and Young Adults’ Dispositions Toward Sexuality. Journal of Adolescent Health 27, 2: 41–44.

[11] Paul, P. (2007). Pornified: How Pornography Is Transforming Our Lives, Our Relationships, and Our Families. New York: Henry Hold and Co., 90.; Berridge, K. C. and Robinson, T. E. (2002). The Mind of an Addicted Brain: Neural Sensitization of Wanting Versus Liking. In J. T. Cacioppo, G. G. Bernston, R. Adolphs, et al. (Eds.) Foundations in Social Neuroscience (pp. 565–72). Cambridge, Mass.: MIT Press.

[12] Doidge, N. (2007). The Brain That Changes Itself. New York: Penguin Books, 107; Berridge, K. C. and Robinson, T. E. (2002). The Mind of an Addicted Brain: Neural Sensitization of Wanting Versus Liking. In J. T. Cacioppo, G. G. Bernston, R. Adolphs, et al. (Eds.) Foundations in Social Neuroscience (pp. 565–72). Cambridge, Mass.: MIT Press.

[13] Hilton, D. L., and Watts, C. (2011). Pornography Addiction: A Neuroscience Perspective. Surgical Neurology International, 2: 19; (http://www.ncbi.nlm.nih.gov/pmc/articles/PMC3050060/) Leshner, A. (1997). Addiction Is a Brain Disease and It Matters. Science 278: 45–7.

[14] Lyoo, K., Pollack, M. H., Silveri, M. M., Ahn, K. H., Diaz, C. I., Hwang, J., et al. (2005). Prefrontal and Temporal Gray Matter Density Decreases in Opiate Dependence. Psychopharmacology 184, 2: 139–144; Thompson, P. M., Hayashi, K. M., Simon, S. L., Geaga, J. A., Hong, M. S., Sui, Y., et al. (2004). Structural Abnormalities in the Brains of Human Subjects Who Use Methamphetamine. Journal of Neuroscience 24, 26: 6028–6036; Franklin, T. E., Acton, P. D., Maldjian, J. A., Gray, J. D., Croft, J. R., Dackis, C. A., et al. (2002). Decreased Gray Matter Concentration in the Insular, Orbitofrontal, Cingulate, and Temporal Cortices of Cocaine Patients. Biological Psychiatry 51, 2: 134–142.

[15] Hilton, D. L. (2013). Pornography Addiction—A Supranormal Stimulus Considered in the Context of Neuroplasticity. Socioaffective Neuroscience & Psychology 3:20767.

[16] Yuan, K., Quin, W., Lui, Y., and Tian, J. (2011). Internet Addiction: Neuroimaging Findings. Communicative & Integrative Biology 4, 6: 637–639; Zhou, Y., Lin, F., Du, Y., Qin, L., Zhao, Z., Xu, J., et al. (2011). Gray Matter Abnormalities in Internet Addiction: A Voxel-Based Morphometry Study. European Journal of Radiology 79, 1: 92–95; Miner, M. H., Raymond, N., Mueller, B. A., Lloyd, M., Lim, K. O. (2009). Preliminary Investigation of the Impulsive and Neuroanatomical Characteristics of Compulsive Sexual Behavior. Psychiatry Research 174: 146–51; Schiffer, B., Peschel, T., Paul, T., Gizewshi, E., Forshing, M., Leygraf, N., et al. (2007). Structural Brain Abnormalities in the Frontostriatal System and Cerebellum in Pedophilia. Journal of Psychiatric Research 41, 9: 754–762; Pannacciulli, N., Del Parigi, A., Chen, K., Le, D. S. N. T., Reiman, R. M., and Tataranni, P. A. (2006). Brain Abnormalities in Human Obesity: A Voxel-Based Morphometry Study. NeuroImage 31, 4: 1419–1425.

[17] Angres, D. H. and Bettinardi-Angres, K. (2008). The Disease of Addiction: Origins, Treatment, and Recovery. Disease-a-Month 54: 696–721.

Print Friendly, PDF & Email


'আপনিও হোন ইসলামের প্রচারক'
প্রবন্ধের লেখা অপরিবর্তন রেখে এবং উৎস উল্লেখ্য করে
আপনি Facebook, Twitter, ব্লগ, আপনার বন্ধুদের Email Address সহ অন্য Social Networking ওয়েবসাইটে শেয়ার করতে পারেন, মানবতার মুক্তির লক্ষ্যে ইসলামের আলো ছড়িয়ে দিন। "কেউ হেদায়েতের দিকে আহবান করলে যতজন তার অনুসরণ করবে প্রত্যেকের সমান সওয়াবের অধিকারী সে হবে, তবে যারা অনুসরণ করেছে তাদের সওয়াবে কোন কমতি হবেনা" [সহীহ্ মুসলিম: ২৬৭৪]

আপনার মন্তব্য লিখুন