একটি সুখদায়ক পরিণতির জন্য ধৈর্য সহকারে অপেক্ষা করুন

0
541

লেখকঃ ড. আয়িদ আল করনী | অনুবাদঃ ডা. হাফেজ মাওলানা মােহাম্মদ নূর হােছাইন

নিচের হাদীসখানি তিরমিযী শরীফে পাওয়া যায়- “সর্বোত্তম ইবাদত হলাে (ধৈর্য সহকারে) স্বস্তির জন্য অপেক্ষা করা।” “প্রভাত কি নিকটবর্তী নয়? [১১-সূরা হুদ : আয়াত-৮১]

দুর্দশাগ্রস্তদের প্রভাত আবির্ভূত হচ্ছে, সুতরাং এর জন্য অপেক্ষা করুন। একটি আরবী প্রবাদ আছে, “রশি যদি বেশি কষে তবে তা ছিড়ে যায়।”

অন্য কথায়, যদি কোন অবস্থা সংকটজনক স্তরে পৌছে যায় তবে আলাে ও খােলা পথের প্রত্যাশা কর। আল্লাহ তা’আলা বলেন: “আর যদি কোন ব্যক্তি আল্লাহকে ভয় করে তবে আল্লাহ তাঁর পাপসমূহ ক্ষমা করে দিবেন এবং তাকে মহাপুরস্কার দিবেন।” [৬৫-সূরা আত তালাক : আয়াত-৫]

আর যে ব্যক্তি আল্লাহকে ভয় করে – আল্লাহ তাঁর কাজ সহজ করে দেন। [৬৫-সূরা আত তালাক : আয়াত-৪]

একখানি নির্ভরযােগ্য হাদীসে নবী করীম (সাঃ) আল্লাহর এ কথা বলেন: “আমার বান্দা আমার প্রতি যেরূপ ধারণা পােষণ করে আমি (তার প্রতি) সেরূপই (আচরণ করি); সুতরাং, সে যেরূপ ইচ্ছা আমার প্রতি সেরূপই ধারণা পােষণ করুক।”

সর্বশক্তিমান আল্লাহ বলেন: “অবশেষে যখন রাসূলগণ হতাশ হয়ে গেলেন আর মানুষেরা ধারণা করল, তাদেরকে (অর্থাৎ রাসূলদেরকে) মিথ্যা আশ্বাস দেয়া হয়েছে বা (নবীগণ ভাবলেন,) মানুষেরা তাদেরকে মিথুক ভাবছে, তখন তাদের নিকট আমার সাহায্য আসল। অতএব, আমি যাকে ইচ্ছা করি সে মুক্তি পায়।” [১২-সূরা ইউসুফ : আয়াত-১১০]

জেনে রাখুন যে, কষ্টের সাথে অবশ্যই স্বস্তি আছে। কোন কোন মুফাচ্ছির বা কুরআনের ব্যাখ্যাকার বলেন, “একটি সঙ্কট দু’টি আরামকে ছাড়িয়ে যেতে পারে না।” এবং এ কথাকে তারা হাদীস মনে করেন।

নবী করীম (সাঃ) বলেছেন: “জেনে রাখ যে ধৈর্যের মাধ্যমে বিজয় আসে এবং কষ্টের মাধ্যমে আরাম আসে।”

একজন আরবী কবি বলেছেন: “যখন নাকি কিছু চোখ ঘুমিয়ে আছে তখন কিছু আঁখি আছে বিশ্রামহীন, কী ঘটবে আর কী ঘটবে না তা নিয়ে গভীর ধ্যানেমগ্ন; অতএব, যথাসম্ভব দুশ্চিন্তা ত্যাগ কর; কেননা, দুশ্চিন্তার বােঝা বহন করা পাগলামি। তােমার প্রভু আছেন, যিনি তােমার গতকালের সমস্যা সমাধান করেছেন, তিনিই আগামীকালও তােমার যা সমস্যা হবে তা সমাধান করবেন।”

আরেক আরবী কবি বলেছেন: 

১. “ঘটনা প্রবাহকে তার পূর্বনির্ধারিত পথে চলতে দাও, আর দুশ্চিন্তামুক্ত মন নিয়ে ঘুমাও।
২. কেননা, আল্লাহ এক পলকের মধ্যে অবস্থার পরিবর্তন করে দেন।

উৎসঃ লা তাহযান [হতাশ হবেন না], ক্রমিক নংঃ ৫০, পৃষ্ঠা: ১২৫ -১২৬

Print Friendly, PDF & Email


'আপনিও হোন ইসলামের প্রচারক'
প্রবন্ধের লেখা অপরিবর্তন রেখে এবং উৎস উল্লেখ্য করে
আপনি Facebook, Twitter, ব্লগ, আপনার বন্ধুদের Email Address সহ অন্য Social Networking ওয়েবসাইটে শেয়ার করতে পারেন, মানবতার মুক্তির লক্ষ্যে ইসলামের আলো ছড়িয়ে দিন। "কেউ হেদায়েতের দিকে আহবান করলে যতজন তার অনুসরণ করবে প্রত্যেকের সমান সওয়াবের অধিকারী সে হবে, তবে যারা অনুসরণ করেছে তাদের সওয়াবে কোন কমতি হবেনা" [সহীহ্ মুসলিম: ২৬৭৪]

দ্বীনী খিদমায় অংশ নিন

আপনার মন্তব্য লিখুন